Sunday, 5 January 2014

হঠাৎ ফোনে বন্ধ হয়ে গেল সংবাদ সম্মেলন

সংবাদ সম্মেলন ডেকে প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ভোট জালিয়াতির বর্ণনা দিচ্ছিলেন নাটোর-৩ (সিংড়া) আসনের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী মিজানুর রহমান। কিন্তু মুঠোফোনে কথা বলার পরই হঠাৎ করে চুপ করে যান তিনি। শেষ করে দেন সংবাদ সম্মেলন।
আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত মিজানুর রহমান বিভিন্ন কেন্দ্রে ঘোরেন। বিকেল সোয়া তিনটার দিকে তিনি সিংড়া বাজারের নিজ নির্বাচনী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন ডাকেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী জুনাইদ আহমেদের চাপে ৯৫ নম্বর পাকিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা আতিবর রহমান ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার দুই ঘণ্টা আগেই ওই কেন্দ্রের রেজাল্ট শিটে তাঁর (মিজানুর রহমান) এজেন্টদের জোর করে সই করান। এ ছাড়া হিজলী, সোনাপুর, সাতপুকুরিয়া, স্থাপনদিঘী ও নূরপুর ভোটকেন্দ্রে তাঁর এজেন্টদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। এসব কেন্দ্রের একটি কক্ষে নৌকা প্রতীকের একাধিক এজেন্ট যান। সেখানে নৌকা প্রতীকের এজেন্টরা ভোটারদের নৌকায় ভোট দিতে বাধ্য করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে মিজানুর রহমান আরও অভিযোগ করেন, একদিকে নৌকার প্রার্থী ও তাঁর ক্যাডাররা ভোটারদের তাঁর হাতুড়ি প্রতীকে ভোট দিতে দেননি। অন্যদিকে প্রশাসন এসব অনিয়মের ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। তিনি বলেন, সব মিলিয়ে সিংড়ায় ভোট গ্রহণ সুষ্ঠু হয়নি।
সংবাদ সম্মেলনের ওই পর্যায়ে মিজানুর রহমানের মুঠোফোনে আচমকা একটি ফোন আসে। ফোনে তিন মিনিট কথা বলার পরই মিজানুর রহমান বসে পড়েন। এ সময় তাঁর মুখ ফ্যাকাশে দেখায়। সাংবাদিকেরা বিভিন্ন প্রশ্ন করেন মিজানুর রহমানকে। কিন্তু তিনি আর কোনো প্রশ্নের উত্তর দেননি। কোনো ঘোষণা ছাড়াই অসমাপ্ত অবস্থায় সংবাদ সম্মেলনটি শেষ হয়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মিজানুর রহমানের ঘনিষ্ঠ এক সহকর্মী সাংবাদিকদের বলেন, ‘পার্টির হেড (রাশেদ খান মেনন) সংবাদ সম্মেলন না করতে চাপ দেওয়ায় মিজানুর রহমান তাঁর বক্তব্য শেষ করতে পারেননি।’