Saturday, 18 January 2014

সংখ্যালঘু সাবেক ইউপি নারী মেম্বার”কে গাছের সাথে বেঁধে আওয়ামীলীগের মধ্যযুগীয় নির্যাতন

nirjaton
শাহনেওয়াজ জিল্লু, কক্সবাজার: লামার ফাইতংয়ে ঘর পোড়ানোর ঘটনা তদন্তকালে সংখ্যালঘু ভানু প্রভা দে (৫০) নামের সাবেক এক নারী ইউপি মেম্বারকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে গুরুতর নির্যাতন চালিয়ে আহত করেছে সরকারদলীয় ক্যাডাররা। আহত ওই নারী বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

গতকাল ১৬জানুয়ারি বৃস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এতে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামশুল আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
থানায় দায়েরকৃত এজাহার সূত্রে জানা গেছে, পার্বত্য লামা উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নের ৩০৬ নং ফাইতং মৌজার আর হোল্ডিং নং ৬৯ ও ৬৫৪ এর ৪একর জমির মালিক স্থানীয় নয়াপাড়া এলাকার সাবেক ইউপি মেম্বার ভানু প্রভা দে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ওইসব জমিতে গাছ রোপন করে ভোগ দখলে আছে। কিন্তু একই এলাকার কিছু ভূমিদস্যুর নজরে পড়ে এসব জমি।

এরই জের ধরে ফাইতং ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল্লাহ ইসলাম মিন্টু, রাঙ্গাঝিরি এলাকার আবদুল হামিদ, জয়নাল আবদিন ও আবদু সোবহানের নেতৃত্বে একদল ভূসিদস্যু গত ২৭ ডিসেম্বর’১৩ইং ভানু প্রভা দের মালিকানাধীন বাগানের বেশ কিছু গাছ কেটে জোরপূর্বক একটি বসতবাড়ি নির্মাণ
করে।

এ বিষয়ে জমির মালিক লামা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। এরই প্রেক্ষিতে বাগান মালিকের জমির ওপর নির্মিত পাহারাদার আমির হোসেনের বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে দুর্বৃত্তরা।
সংখ্যালঘু নারী ইউপি (সাবেক) মেম্বার ভানু প্রভা দে জানান, এঘটনায় তিনি বাদী হয়ে লামা থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। বিষয়টি নিয়ে ১৬জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে লামা থানার এস.আই হেলাল উদ্দিন তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওঁৎপেতে থাকা ভূমিদস্যুর সংঘবদ্ধ একটি দল তদন্তকারী কর্মকর্তার আড়ালে মামলার বাদী ভানু মেম্বারকে গাছের সাথে বেঁধে আটকে রেখে ব্যাপক মারধর করে।
পরে তদন্তকারী কর্মকর্তা বিষয়টি আঁচ করতে পেরে আহত ভানু প্রভা দেকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করলে ভূমিদস্যুরা তদন্তকারী কর্মকর্তার ওপরও চড়াও হয়। তৎক্ষণাত বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামশুল আলমকে অবহিত করা হলে তিনি ঘটনাস্থলে দ্রুত পৌঁছালে পুলিশ ও বাদী প্রাণে রক্ষা পায়।
এঘটনায় দেশব্যাপি সংখ্যালঘুদের ওপর সংহিস কর্মকান্ডের ন্যায় লামাতেও উল্টো সরকার দলীয় লোকজন কর্তৃক তা-বের ঘটনা সংঘটিত হওয়ায় এলাকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
http://prodhannews24.com/?p=2573