Saturday, 16 March 2013

তিতাস একটি যুদ্ধাপরাধীদের ষড়যন্ত্রের নাম

তিতাস একটি যুদ্ধাপরাধীদের ষড়যন্ত্রের নাম। 
লালন শাহ'র তিন পাগল নিয়ে গান বেঁধে ছিলেন। আর আমাদের দেশে হাজারে হাজারে কাতারে পাগল গুলিস্তানে, নয়া-পল্টনে, মগবাজারে, আমাদের উত্তর মেরু আর দক্ষিন মেরুর কাহিনী কয়! সেই উত্তর মেরু আর দক্ষিন মেরু-তে ডিজিটাল (ভার্চুয়াল) সোনার-বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখতেন বঙ্গবন্ধু ! তয় উত্তর মেরু এবং দক্ষিন মেরু'র মাঝ খানে ভারত থাকবে সেটা ও দেখতেন!! ইহা রাম রচনা নয়! সত্য সত্য তিন সত্য। হাজার হাজার সমস্যা নিয়ে কারো মাথা ব্যথা নাই!! শুধু স্বার্থ-উদ্ধারের জন্য চাটুকারী, লেহন চলিতেছে বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ, যুদ্ধাপরাধী ইত্যাদি ইস্যু নিয়ে! দেশে আর কোন সমস্যা নাই! 

আমাদের জাতীয় দৈনিক উটপাখি, দৈনিক সারওয়ার কাল, দৈনিক বসুর-কাল, দৈনিক চটি-সময়, দৈনিক অগা-ন্তর, বেদের-মেয়ে জোস্না২৪.com সহ প্রায় সবাই সরাসরি অথবা গোপনে সোপনে ভারত মাতার মহি-সোপনে ডিঙ্গি নৌকা' নিয়ে জিকির করে যাচ্ছে! যত-ই লুকানোর চেষ্টা করো পৈতা দেখা যায়! এই সব জাতীয় দৈনিক জাতীর পাছায় বাঁশ দিতেছে প্রগতির নামে নয়তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে! আমাদের দেশের ক্ষতি হোক কিন্তু যদি ভারতের উপকার হয় তাতে-ই তারা খুশি। 

প্রথম-আলো মানে উটপাখি পরিবেশ নিয়ে নানা সংবাদ করে চিংড়ি গের বানাইতে কে নাদীতে টিন দিয়ে বাঁধ দিছে অথবা বদলে যাওয়ার শ্লোগান দিয়ে লতিপুরের দুই-নম্বরী কারবারের রাস্তা তৈরি করে দেয়া। বাঙালী সংস্কৃতি নিয়ে তাদের মায়া-কান্না অথচ কেটেরিনা-কাইফ কোন দিন বেশী হাগছে আর অথবা শারুক খান কেন কনডম ছাড়া প্রিয়াংকা চোপরারে ... ইত্যাদি। অথচ ভারত কে ট্রানজিট দেয়ার জন্য তিতাস নদী সহ অন্যান নদীতে বাঁধ দেয়া নিয়ে তাদের কোন সাড়া শব্দ নাই!! 

এ ছাড়া দৈনিক সারওয়ার কাল, দৈনিক বসুর-কাল, দৈনিক চটি-সময়, দৈনিক অগা-ন্তর, বেদের-মেয়ে জোস্না২৪.com এ গুলার কথা কি কমু এদের দেহে পাকি রক্ত না থাকলে ও এ গুলা যে দাদা'দের নুনু চাটে তাতে কোন সন্দেহ নাই। মাঝে মাঝে দিল্লি সফর করে আর চেটে আসে। 

আমাদের পরিবেশবাদী সংগঠন গুলা এখন কি করে? তারা ও কি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের শপথ পাঠ নিয়ে ব্যস্ত? 

আর ডিজিটাল মিড়িয়া যেমন চ্যানেল- আই চেতনার আলো বিলি বন্টন করে পশ্চিমা কালচার পুজি করে তারপরে ও টেক্স ফাঁকি দেয়!! চেতনার ব্যবসা করলে সব জায়েজ! সেটা কিন্চিত ভুল। শাইখ সিরাজ মাছের ফোনা, 
আলু'র মতি-ফ্যাশন নিয়ে রির্পোট করে অথচ তিতাসের মাছ কি ৩৫০ টনের নিচে অশ্ব-ডিম দিতেছে তা নিয়ে কোন খবর নাই!! 

এই ডিজিটাল মিড়িয়ার মধ্যে একমাত্র ২১শে টিভি ধারাবাহিক রির্পোট করেছে। তাদের জন্য হাজার সালাম। 

আমাদের জাতির স্ব-ঘোষিত মাথা যারা বোরকা কেন? অথবা মানবতা কেন যুদ্ধাপরাধী'র জন্য লেখা লেখে তখন ভাবি তোরা মানুষ হ।আর ভাবি শাহ জালাল বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে তিতাস নদী কত দূরে? আবার জননেত্রী যখন রবীন্দ্রনাথ নিয়া গল্প পাড়ে তার ভেক-ধারী তল্পি বাহক চাটুকার, লেহনকারীদের নিয়ে রবীন্দ্রনাথের ভাষায় বলতে ইচ্ছে করে ... ১৬ কোটি সন্তানের মুগ্দ্ধ জননী রেখেছো বাঙালী করে মানুষ করোনি! তারা ভারতীয় হৈতে ইচ্ছুক আপনার মতো তাই মানুষ হৈতে চায় না! আর নজরুলের "বিদ্রোহী"রা জঙ্গি নয়তো মৌলবাদী অথবা ভারত বিরুদ্ধী খেতাব পাইবে! কিন্তু ভারতের স্বার্থ লেহনের জন্য যারা এই দেশের সর্বাঙ্গ কে ধর্ষন করে যাচ্ছে পাকিস্তানের ধাঁ ধাঁ দিয়ে তারা প্রগতিবাদী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাধারী আরো কত কি কি! তবে মনে রেখো তোমাদের এই হিজলামী পুরুষত্বের আড়ালে আর বেশী ধরে রাখতে পারবে না! 

আমি রাজাকার ড়াজাকার যদি ও ৭১ রে জন্ম হয়নি তবু আমার ছাগু হৈতে কোন বাধা নাই! তবে চটি শিল্পী হয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ব্যবসা করতে কষ্ট হবে! 

সব কিছু মেনে নিতে রাজি তবে চেতনা ব্যবসায়ী বুদ্ধীজীবি, মিড়িয়া আবালদের কাছে আবেদন তোরা আর ভন্ডামী করিস না যুদ্ধাপরাধীর বিচার নিয়ে! তোরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের নামে সব কিছু ঢাকিস না। সব দেখা যাইতেছে..... সাজেদার পোড়া খাওয়া ছামড়া হৈতে সাহারা মরুভূমি .... 

সব কিছু যুদ্ধাপরাধীরা করে যাচ্ছে! "তিতাস" নদীতে বাঁধ ও যুদ্ধাপরাধীরা দিয়েছে। এবং তা নিয়ে এখন আন্দোলন করার অপচেষ্টা করে যাচ্ছে। যা বঙ্গবন্ধুর সৈনিক, রাসেল সৈনিকেরা করতে দিবে না! প্রয়োজনে ককটেল, বোমা মেরে জঙ্গি, বিএনপির সন্ত্রাসীদের কাজ বলে হানিফ গং দের দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হবে। আর মির্জা আযম, শেখ সেলিম, তাপসেরা এই সব ভিডিও গেম প্লানে আন্তর্জাতিক মানের। জয় বাংলা।