Saturday, 16 March 2013

যেখানে সারা দেশের আলেমরা একদিকে সেখানে নাস্তিকদের পক্ষে এই তিন ভন্ড কেন ?




এই হচ্ছে ফরিদউদ্দিন মাসুদ ..একজন সুবিধাবাধী ও দুর্নীতিবাজ মাওলানা নামের কলঙ্ক ..আর এই কলঙ্ককে আরো বেশি কলঙ্কিত করেছে নাস্তিকদের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে ..আর এই নাস্তিকদের বাঁচাতে এবার মতিঝিলে ২৩ তারিখে সমাবেশ করার ঘোষণা দেয় এই ওলামায়ে ছু ...

তার উল্লেখযোগ্য কিছু অপকর্ম ..

১) স্বঘোষিত নাস্তিকদের পাশে দাঁড়িয়ে স্বঘোষিত মুক্তিযোদ্ধা মাওলানা মাসউদ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মনে প্রচণ্ড আঘাত দিয়েছেন। 

২) আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় আসে তখনই ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা মাওলানা মাসউদ সরকারের আনুকূল্য নিয়ে ইসলাম ও বিভিন্ন ইসলামি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। দুর্নীতির দায়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে চাকরিচ্যুত হন 

৩) ফরিদ উদ্দিন মাসুদ সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেমে দ্বীন ও জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের মরহুম খতিব মাওলানা ওবায়দুল হককেও খতিবের পদ থেকে অপসারণে নেপথ্য ভূমিকা রাখেন। 

৪) জঙ্গি নেতা ফরিদ উদ্দিন মাসুদ আওয়ামী লীগ নেতা মির্জা আজমের আপন ভগ্নিপতি জঙ্গি নেতা শায়খ আবদুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহযোগী হিসেবে তিনি গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘদিন কারাবরণও করেন। 

৫) চাকরির পাশাপাশি তিনি এনজিও ব্যবসাও শুরু করেন। ‘ইছলাহুল মোছলেমিন’ নামক তার একটি এনজিও রয়েছে। এনজিওর টাকা আত্মসাত করে বিলাস বহুল জীবন যাপন ..

৬) শোলাকিয়ায় ভন্ডামি ও দুর্নীতির জন্য যেকোনো সময় শারীরিকভাবে লাঞ্চিত ও অবাঞ্চিত হতে পারেন

৭) কমিশন গঠন করে কওমী মাদ্রাসার বিরুদ্বে ও ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে এই শয়তান ফরিদ উদ্দিন মাসুদ .

মতিঝিলের ২৩ তারিখের সমাবেশে ফরিদ উদ্দিন মাসুদকে খুন করতে পারে আওয়ামীলীগ ..আগের বারে ত্বকী ও রাজিবকে খুন করে ফায়দা লুটতে না পারলে ও আওয়ামীলীগের টার্গেট ফরিদ উদ্দিন মাসুদকে খুন করে নাস্তিকদের বিরুদ্বে হেফাজতে ইসলামের আন্দোলন বন্ধ করা 





মিসবাহুর রহমান
 : যাকে সাপ বললে ও সাপের অপমান হবে ..একাত্তরে রাজাকার থাকলে ও একসময়ের এই হকার নেতা শুধু জামায়াত শিবিরের বিরোধিতা করেই এখন সরকারের আস্থাভাজন হয়েছেন .লুটপাট করে কামিয়ে নিচ্ছেন হাজার লক্ষ টাকা ..একসময় যেই সব মিডিয়াতে মিসবাহকে ২ মুখ ওয়ালা সাপ বলতো সেই মিসবাহ এখন একই মিডিয়ায় সরকারের মুখপাত্রের মত কাজ করে .

তার কিছু উল্লেখযোগ্য অপকর্মের ফিরিস্তি দিলাম :

১) নিরীহ হকারদের অর্থ আত্মসাতকারী ..এবং স্বীকৃত চাদাবাজ ..

২)ইয়াং মুসলিম সোসাইটির সভাপতির পদটি রীতিমত গায়ের জোরে সে হাইজাক করেছে 

এদিকে গোপন খবরে জানা যায় জামায়াত নেতাদের অভিযুক্ত করতে পারলেই মিসবাহুর রহমানকে ট্রাইবুনালে বিচারের জন্য মুখোমুকি করবে ..এই কথা জানার পর দেশ থেকে পালানোর চেষ্টায় আছেন এই দ্বিমুখী সাপ ..গোপনে কিছু কিছু দেশের দুতাবাসে ও ভিসার জন্য ঘুরছেন মিস্বাহুর রহমান ..কিন্তু স্বার্থের জন্য সরকার এখনো তাকে দেশ থেকে পালাতে দিচ্ছে না ..পরবর্তী লন্ডন সফরে এসে আর দেশে নাও ফিরতে পারেন মিস্বাহুর রহমান . 



শামীম আফজাল : 

১)বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক ইমাম প্রশিক্ষন ট্রেনিংয়ের সমাপ্তিতে ইসলামী কালচারাল শোর নামে পশ্চীমা তরুণ- তরুণীদের দ্বারা বেলে ড্যান্সের আয়োজন হয় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজির নির্দেশে । এদেশের ইতিহাসে এত বড় স্পর্ধা আর কেউই দেখাতে পারেনি যা এই শামীম আফজাল দেখিয়েছে। 

২)অতঃপর ইমামদের আর এক অনুষ্ঠানে কাঙ্গালীনি সুফিয়াকে দিয়ে একতারা ও শরীর দুলিয়ে নাচে-গানে ইমামদের হতবাক করে। সেদিনও নির্লজ্জভাবে শামীম আফজাল ওই নর্তকীর সঙ্গে করমর্দন করেন। 

৩)ইসলাম ও মুসলমানদের দুশমন, কওমি মাদরাসার প্রধান শত্রু ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজি কবরপূজারী শামীম মোহাম্মদ আফজাল। 

৪)জাকির নায়েকের বিরুদ্বে ও ফিতনা ছড়াচ্ছে এই কবর পুজারী 

এই ভন্ডদের বিরুদ্বে আজ দেশের সকল তৌহিদী জনতা ..ঈমানের দাবিতে আজ তারা নাস্তিকদের বিরুদ্বে ঐক্যবদ্ব। কিন্তু নাস্তিকবাদী সরকার থেকে টাকা খেয়ে ইসলাম বিরোধী শক্তির দালালি করে যাচ্ছে ফরিদ উদ্দিন মাসুদ , মিস্বাহুর রহমান , ও শামিম আফজাল