Sunday, 29 December 2013

সুপ্রিমকোর্টে হামলার নেতৃত্বে শীর্ষ সন্ত্রাসী হান্নান!

ঢাকা: সুপ্রিমকোর্টে আওয়ামী লীগের হামলায় নেতৃত্বে দিয়েছেন রাজধানীর শীর্ষ ২৩ সন্ত্রাসীর অন্যতম কামরুল হাসান হান্নান।

রোববার বিরোধী দলের ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ কর্মসূচি চলার সময় সুপ্রিম কোর্টে বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের ওপর হামলা চালায় আওয়ামী লীগ কর্মীরা।

দুপুর ২টায় বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের প্রতিহত করতে সুপ্রিমকোর্টের প্রধান ফটক খুলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে যুবলীগ-ছাত্রলীগের কর্মীরা।

জানা গেছে, সে হামলায় নেতৃত্বে দেন হান্নান। তবে হামলা শুরুর কিছুক্ষণ পরই তিনি সটকে পড়েন। পুলিশের উপস্থিতিতে তার নেতৃত্বে হামলার বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহলে তোলপাড় চলছে।


বেলা ১১টার পর হান্নান লাঠি হাতে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আন্দোলন প্রতিহত করার মিছিলে সমবেত হন। দুপুর ২টার পর তাকে লাঠি হাতে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে হাইকোর্টের ভেতরে প্রবেশ হতে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিমকোর্টে আওয়ামী লীগের হামলার নেতৃত্বে ছিলেন শীর্ষ সন্ত্রাসী হান্নান। হামলা শুরুর পর সুপ্রিমকোর্টের ভেতরে মোটরসাইকেলে আগুন দেয়াসহ তাণ্ডব শুরু হলে তিনি সটকে পড়েন। ওই সময় সুপ্রিমকোর্টের সামনে পুলিশ-র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র জানায়, রমনা-কাঁঠালবাগান এলাকা দাবড়ে বেড়ানো হান্নানের নাম ২৩ শীর্ষ সন্ত্রাসীর তালিকায় স্থান পাওয়ার পর দীর্ঘ ৭ বছর তিনি ভারতে পালিয়ে ছিলেন। চলতি বছরের প্রথম দিকে হান্নান ঢাকায় এসে নিয়ন্ত্রণ নেন রমনা থানার ইস্কাটন-মগবাজার ও কলাবাগান থানার কাঁঠালবাগান ও পান্থপথ এলাকার। তবে আওয়ামী লীগের কোনো কর্মসূচিতে এই প্রথম প্রকাশ্যে তাকে দেখা গেল।

উল্লেখ্য, হান্নান যুবলীগ থেকে বহিষ্কৃত (বর্তমানে নিখোঁজ) লিয়াকত হোসেনের ছোট ভাই।

যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী হান্নান যুবলীগের কেউই না। কেন্দ্রীয় বা ঢাকা মহানগরের কোনো পদেই তার নাম নেই। সে মিছিলে ছিল কিনা তা আমি দেখিনি।’

আগামীতে এ বিষয়টিতে সতর্ক থাকা হবে বলে জানান তিনি।

তবে শীর্ষ সন্ত্রাসী হান্নানের কথা অস্বীকার করে র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জিয়াউল আহাসন বাংলামেইলকে বলেন, ‘সুপ্রিমকোর্টে যে হান্নানকে দেখা গেছে সে শীর্ষ সন্ত্রাসী হান্নান নয়। শীর্ষ সন্ত্রাসী হান্নানের বাড়ি মানিকগঞ্জে। সে মানিকগঞ্জের হান্নান হিসেবে পরিচিত।’