Sunday, 12 May 2013

গণহত্যায় নিজামী ছিলেন না বলায় সাক্ষীকে বৈরী ঘোষণা


ঢাকা: আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো রাষ্ট্রপক্ষ প্রসিকিউশন তাদের সাক্ষীকে বৈরী ঘোষণা করেছেন।

রবিবার বিচারক এটিএম ফজলে কবিরের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ জামায়াতের সাবেক আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের সাত নম্বর সাক্ষী প্রদীপ কুমার দেবকে বৈরী ঘোষণা করা হয়।

ট্রাইব্যুনালে ‘১৯৭১ সালের ৮ মে পাবনার মেঘাঠাকুর জমিদারবাড়িতে নিজামীর নেতৃত্বে গণহত্যা চালিয়ে ১২ জনকে হত্যা করা হয়।’ প্রসিকিউশনের এমন বক্তব্যে সাক্ষী প্রদীপ কুমার বলেন, ‘সেখানে নিজামী উপস্থিত ছিলেন না।’

এরপর প্রসিকিউশন বলেন, ‘এ ঘটনার চার থেকে পাঁচ দিন আগে একই এলাকার খোদাবক্স মৃধার বাড়িতে এ ধরনের ঘটনা ঘটানোর জন্য সভা করা হয় এবং ওই মিটিংয়ে নানা ষড়যন্ত্র করা হয়।’ একইভাবে এবারো উত্তরে সাক্ষী প্রদীপ কুমার বলেন, ‘সেখানেও নিজামী উপস্থিত ছিলেন না।’

এরপর প্রসিকিউটর ইকবাল হোসেন সাক্ষীকে বৈরী ঘোষণা করেন। বৈরী ঘোষণার পর রাষ্ট্রপক্ষ সাক্ষীকে জেরা করেন। জেরায় রাষ্ট্রপক্ষ বলেন, ‘আপনি নিজামীর বিরুদ্ধে সাক্ষী দিতে এসে টাকা খেয়ে নিজামীর নামে সাফাই গাচ্ছেন।’

তবে এই অভিযোগের জবাবে সাক্ষী বলেন, ‘এটা সত্য নয়।’

এ সময় প্রদীপ কুমার দেব বলেন, ‘মেঘাঠাকুর জমিদারবাড়ির গণহত্যা ও খোদাবক্স মৃধার বাড়িতে যে সভা হয়েছিল সেসব ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী তিনি।