Tuesday, 23 July 2013

আমার কাছে তথ্য আছে আ.লীগ আবার ক্ষমতায় আসবে - জয় : বাংলার চেহারা পাল্টে দেব

আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে, এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আওয়ামী লীগকে আবার ক্ষমতায় আনুন, বাংলার চেহারা পাল্টে দেব। আমার কাছে খবর আছে, আগামীতে আবারও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে।
গতকাল বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত ইফতার মাহফিলে যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন। গত ১৬ জুলাই স্ত্রী-মেয়েসহ দেশে আসেন। দেশে আসার পর জয় গতকালই প্রথম রাজনৈতিক সভায় বক্তব্য রাখলেন।
সরকারের শেষ সময়ে দেশে এসে দলীয় কর্মকাণ্ডে অংশ নেয়ার কারণ তুলে ধরে তিনি বলেন, আমি বিএনপির মিথ্যা প্রচারণা মোকাবিলা করতে এসেছি।
আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের প্রতি উদ্দেশ করে জয় বলেন, এখন থেকে আগামী ছয় মাস বিএনপির দুর্নীতি, অপশাসন তুলে ধরুন। তাদের অপকর্মের কথা মানুষকে মনে করিয়ে দিন।
জয় বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে হাওয়া ভবন নামে দেশে কোনো ভবন তৈরি হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে আগামী ১৫ বছরের মধ্যে দেশ মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হবে। আর বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশে আবারও হাওয়া ভবন তৈরি হবে। যে কোনো কাজ করতে গেলে চাঁদা দিতে হবে।
তিনি বলেন, সাড়ে চার বছর ধরে আওয়ামী লীগ দেশে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করে যাচ্ছে। এখন আর মানুষকে লোডশেডিংয়ের দুর্ভোগ পোহাতে হয় না। আওয়ামী লীগই বিদ্যুত্ সমস্যার সমাধান করেছে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে নতুন কোনো বিদ্যুেকন্দ্র বানাতে পারেনি।
জনগণের উদ্দেশে সজীব ওয়াজেদ বলেন, আপনারা বিএনপি এবং আওয়ামী লীগের দুই টার্ম তুলনা করে দেখেন, কারা বেশি উন্নয়ন করেছে। আওয়ামী লীগ বিগত চার বছরে দেশকে উন্নয়ন করে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে গেছে। আওয়ামী লীগ এক টার্মে যে উন্নয়ন করেছে, বিএনপি দুই টার্মেও সে উন্নয়ন করতে পারেনি।
বিএনপির আমলে দেশে এক মেগাওয়াট বিদ্যুত্ উত্পাদন হয়নি বলে অভিযোগ করে জয় বলেন, কিন্তু বর্তমান সরকারের আমলে দেশে কয়েক হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুত্ উত্পাদন করা হয়েছে।
জয় বলেন, বিএনপির আমলে হলমার্ক, ডেসটিনির মতো দুর্নীতি করলেও কেউ গ্রেফতার হতো না। এমনকি এসব কথা বলাও যেত না। দুর্নীতিতে বাংলাদেশ এক নম্বর ছিল। ব্যবসায়ীদের চাঁদা জমা দেয়ার জন্য হাওয়া ভবন সৃষ্টি হয়। খাম্বার কথা কেউ ভুলে যায়নি।
জয় বলেন, আওয়ামী লীগের আমলে কাউকে চাঁদা দিতে হয়নি। হাতিরঝিলের মতো স্থাপনার কারণে ঢাকাকে আন্তর্জাতিক শহর মনে হয়। তিনি বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নকে আমরা সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছি। এভাবে অর্থনীতি এগোলে আমাদের ভিশন-২০২১ বাস্তবায়ন হবে। আওয়ামী লীগ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যায়। আর বিএনপির আমলে হয় শুধু দুর্নীতি।
প্রধানমন্ত্রীপুত্র বলেন, ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামলার কথা ভুলে যাইনি। ওই সময় আমার মাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী আইভি রহমানসহ ২৩ জনকে হত্যা করা হয়। চারশ’ জন আহত হয়। তত্কালীন প্রধানমন্ত্রীর পুত্র এতে জড়িত থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে। যেটা দুঃখজনক।
যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যবিষয়ক উপদেষ্টা সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মীজানুর রহমান, যুবলীগ নেতা হারুনুর রশীদ প্রমুখ।