Saturday, 13 April 2013

হেফাজত ও জামায়াতকে অভিযুক্ত করতে বৈশাখী শোভাযাত্রাতে শাহবাগীদের বোমা হামলার পরিকল্পনা

ছাত্রলীগের চাদাবাজি ও দলীয় কোন্দলের কারণে বৈশাখী অনুষ্ঠানের  কনসার্ট বাতিল করেছে ছাত্রলীগ .. এদিকে ছাত্রলীগ ও গণজাগরণ মঞ্চের মাঝে ও চরম কোন্দল দেখা দিয়েছে ...কারণ হিসাবে জানা যায় গণজাগরণ মঞ্চের দখল নিয়ে ভিতরে ভিতরে যুদ্ব চলছে আওয়ামীলীগ ও গণজাগরণ মঞ্চের সাথে জড়িত বাম দলগুলোর মাঝে।

সকলেই জানেন ফেসবুকে সাহবাগিদের একটি পেইজ আছে , নাম শাহবাগের সাইবার যুদ্ব ..এই পেইজটি ছিল বামদের দখলে ..কিন্তু কিন্তু সেই পেইজটি দখল করে নেয় আওয়ামীলীগের মিডিয়া সেলের সেক্রেটারি ইমরান এইচ সরকার ..এই নিয়ে কোন্দল চরম আকার ধারণ করার পর শাহবাগের স্লোগান কন্যা লাকি আখতারকে ধোলাই দেয় আওয়ামীলীগ।


প্রথম থেকে শাহবাগ জামায়াত শিবির ও হেফাজত বিরোধী জঙ্গি কর্মসূচি দিয়ে যাচ্ছিল। হেফাজতের লংমার্চের দিন হরতাল দিয়েছিল শাহবাগীরা ..কিন্তু তাদের এই হরতাল চরমভাবে ফ্লপ খায়। উল্টো ওই দিন মুরগি কবিরের উপর উত্তরায় হামলা হয়। তারপরে হেফাজত ও জামায়াতের বিরুদ্বে লাঠি মিছিল করে আওয়ামীলীগ ও শাহবাগীরা .

এদিকে হেফাজত ইসলাম ও জামায়াত শিবিরকে বাংলাদেশের সংস্কৃতির  বিরোধী প্রমানের জন্য বৈশাখী শোভাযাত্রা নিয়ে চরম ষয়যন্ত্র  করছে আওয়ামীলীগ ও শাহবাগীরা। ১৯৯৭ সালের রমনা বটমূলের মত বোম ফুটাতে জঙ্গিদের সাথে যোগাযোগ সম্পন্ন করেছে আওয়ামীলীগের ২ সংসদ সদস্য। এদের একজন হলো মির্জা আজম ও অন্যজন হলো জাহাঙ্গীর কবির নানক। মির্জা আজমের  ভগ্নিপতি শায়খ আব্দুর রহমানকে ইতিমধ্যে দেশ জুড়ে সিরিজ বোমা হামলায় কারণে ফাসি কার্যকর করা হয়।

পরিকল্পনা অনুযায়ী আজকে রাত্রেই উত্তরাঞ্চল থেকে জঙ্গিরা ঢাকায় এসে পৌছেছে। অবস্থান করছে আওয়ামীলীগের এক নেতার বাসায়। তাদের গেটআপ মূলত দেখতে ধর্মীয় নেতাদের মত।
ছাত্রলীগ ও ইমরান এইচ সরকার ইতিমধ্যে বোম সাপ্লাই দিয়েছে। আওয়ামীপন্থী মিডিয়ার সাথে এই নিয়ে কয়েকদফা বৈঠক করেছে ইমরান এইচ সরকার।জঙ্গিরা বৈশাখী শোভাযাত্রায় বোমা হামলা করার সময় এটিএন ও একাত্তর টিভির সাংবাদিকরা ভিডিও দৃশ্য ধারণ করবে।

ভিডিওতে দেখা যাবে হুজুর টাইপের কয়েকজন লোক বোমা হামলা করবে। আর সেগুলো জামায়াত শিবির ও হেফাজতের কাজ বলে প্রচার করবে আওয়ামীলীগ ও বামদের সিন্ডিকেট মিডিয়া। এই ধরনের পরিকল্পনা নিয়েই এগুচ্ছে আওয়ামী ও বাম সন্ত্রাসীরা।
তাই সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান একদিনের আনন্দ করতে গিয়ে আপনার মূল্যবান জীবন আওয়ামী ও শাহবাগীদের কাছে দিয়ে আসবেন না।