Wednesday, 10 April 2013

নারী নির্যাতন নিয়ে সুশীলদের এই ম্যাত্কার আগে কই ছিলো ?



গত কয়েকদিন আগে হেফাজতে ইসলামের লক্ষ লক্ষ লোকের সমাবেশে হলুদ সাংবাদিকতা করতে হলুদ সাংবাদিকতা করতে গিয়ে বিক্ষুব্ধ জনতার হাতে লাঞ্চিত হন ইটিভি সহ আরো কয়েকটি চ্যানেলের সাংবাদিক ..তার আগের দিন ও চট্রগ্রামে বিটিভি ইন এইচডির-HD- (একাত্তর টিভি ) এক সাংবাদিক ও গণধোলাইয়ের শিকার হয়। কারণ একটাই হলুদ ছাড়িয়ে কমলা সাংবাদিকতা করতে গিয়ে রোষানলে পড়ে ওই সাংবাদিক ..

কিন্তু হেফাজতের ইসলামের জনসভায় ইটিভির একজন মহিলা সাংবাদিক জনতার হাতে লাঞ্চিত হওয়ার পর সুশীলদের চিত্কারে মনে হয় বাংলাদেশে ইতিপূর্বে আর কোনো নারী লাঞ্চিত হয়নি। 

তারপর থেকে হেফাজতকে নারী বিদ্বেষী হিসাবে প্রমানের জন্য শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরের পেইজ থেকে চট্রগ্রামে পরকীয়া নিয়ে এক হিন্দু মহিলাকে তার স্বামীর মাইর দেওয়ার ঘটনাকে হেফাজতের কাজ বলে নির্লজ্ব মিথ্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে আওয়ামী পেইজগুলো .

কিন্তু একটি কথা সকলেই জানেন আওয়ামীলীগের নেতাদের দ্বারা শাহবাগে যখন লাকি আখতার নির্যাতিত হলো তখন এই সুশীলদের ম্যাতকার কোথায় ছিলো ?




এটা কি আওয়ামীলীগের হাতে হয়েছে বলে সুশীলরা মুখে কুলুপ এটে রেখেছে ?

আওয়ামীলীগ আমলে আরো কিছু নির্যাতনের ছবি দেখাবো এখন আপনাদের .......



বেশি দুরে না এইতো সেইদিন বগুড়ায় একজন মহিলাকে এইভাবে হত্যা করে লাশ নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ 



সাগর রুনি হত্যা নিয়ে স্বরাস্ট্রমন্ত্রীর চা খেয়ে সবাই চুপ



ছাত্রলীগের নির্যাতনে পালাচ্ছে মহিলা ছাত্রলীগ 



নারায়ানগঞ্জে মেধাবী ছাত্রীদের সংবর্ধনা দেওয়ার সময় গ্রেপ্তার করা হয় এই সব নারী কর্মীদের .

আরো কিছু নারী নির্যাতনের চিত্র 

















পিরোজপুরে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হাত থেকে নিজেদের রক্ষার পর ছাত্রী সংস্থার কর্মীদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ 



নারী নির্যাতন ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে প্রেসক্লাবে প্রতিবাদ করতে আসার পর গ্রেপ্তার করা হচ্ছে সাবেক সচিব সহ সম্মানিত মা বোনদের .



নামাজ পড়তে বাধা , অবশ্যই নারী অধিকার হরণ চট্রগ্রাম নার্সিং কলেজে .



ঢাকার একটি কলেজে হিজাব পরার অধিকার কেড়ে নেওয়ার পর কলেজ ত্যাগ করে বের হয়ে আসছে ২ বোন .



বোরকা পরার কারণে একজন বিদেশী মহিলাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিলো বায়তুল মোকারম উত্তরগেট থেকে .



বিএনপির নারী নেত্রীকে পুলিশ ভ্যান থেকে ফেলে দিয়েছিলো আওয়ামী পুলিশ 



রাজধানীর একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাচ্ছে জামায়াত সমর্থিত কয়েকজন মহিলা কর্মীকে .এদের মধ্যে একজন মেয়ে ছিলো ৭ মাসের গর্ভবতী ..পুলিশ রিমান্ডের নামে ৭ তলা থেকে লিফট থাকা সত্বে ও পুলিশ সিড়ি দিয়ে নামাতে বাধ্য করে .

জাহাঙ্গীর নগর ভার্সিটির সোনার ছেলে ধর্ষণে সেন্চুরি করলে ও এই সব জ্ঞানপাপী সুশীল নামের শয়তানরা কোনো কথা বলে না ..ছাত্রলীগ এসিডে জলসে দিলে ও কোনো কথা বলে না ..

কয়েকদিন আগে টকশোতে আসিফ নজরুল বলেছিলেন , আমরা সুশীলরাই সবচেয়ে বড় খারাপ ..বর্তমানে ,চুলটানা কামাল এখন বোবা হয়ে গেছে , কানা মিজানের চোখ নাই , ও অন্যান্য কথিত সুশীলদের কার্যক্রম দেখলে এই কথাটিই যথার্থ মনে হয় ..যারা লাকি ও উপরুক্ত নির্যাতনগুলোর বিরুদ্বে কোনো কথা বলে না, কথিত এই সব সুশীলরা মহিলা সাংবাদিক নির্যাতন নিয়ে কথা বলেন কোন মুখে ??