Tuesday, 4 March 2014

সাতক্ষীরা অপারেশনে ভারতীয় বাহিনীঃ আগেই বলেছিল ভারতের দ্যা হিন্দ।এবং আরো কিছু প্রমান



বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্ভভৌমত্ব দেশ। ৩০ লক্ষ প্রানের বিনিময়ে অর্জিত হয় এই দেশের স্বাধীনতা। কিন্তু যারা নিজেদেরকে মুক্তিযুদ্বের স্বপক্ষের একমাত্র শক্তি বলে ,সেই রকম একটি সরকারের কাছে দেশের সার্ভভৌমত্ব আজ হুমকির মুখে বলে প্রশ্ন উঠেছে সর্বমহলে। এই হুমকির একমাত্র কারণ বাংলাদেশে ভারতীয় সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপ। এই ধরনের একটি ফ্যাক্সবার্তা প্রকাশ হলো গতকাল। যা নিয়ে তোলপাড় চলছে সারাদেশে। 

চলমান রাজনৈতিক সংকটে ভারতীয় বাহিনীর সাহায্য চেয়ে বাংলাদেশ সরকারের তরফ থেকে পাঠানো এই বার্তায় দেখা যায়, বাংলাদেশে রাজনৈতিক দমন-পীড়ন সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহণ করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ৩৩তম কোরের ১৭তম, ২০তম ও ২৭তম মাউন্টেন ডিভিশান, এবং বিএসএফ।


ফাঁস হওয়া বার্তাগুলো দেখুন....

ফাঁসকৃত প্রথম বার্তার পৃষ্ঠা-১: 



ফাঁসকৃত প্রথম বার্তার পৃষ্ঠা-২:



ফাঁসকৃত প্রথম বার্তার পৃষ্ঠা-৩ 



৬ নভেম্বর ঢাকা থেকে দিল্লীতে পাঠানো ঐ মূল ফ্যাক্স :

To :Bangladoot Delhi

From: PAMA Dhaka

No: /CSAS/IND/579

Date: 6 November 2013

Political Counselor From CSAS(EA&P)

----------------------------------------------------

Subject: Militery Aid From India and Deployment at Satkhira

(সাতক্ষীরায় ভারত হতে সামরিক সাহায্য গ্রহন এবং প্রয়োগ)

ব্রেগেডিয়ার জেনারাল নূর মোঃ নূর ইসলামের, পিএসসি, জি(প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা, বাংলাদেশ হাই কমিশন দিল্লি) পত্র মোতাবেক তারিখ ৪/১১/২০১৩ইং তে দয়া করে মিনিস্ট্রি অফ ফরেইন এফ্যায়ার্স(MOFA) এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (PMO) প্রদত্ত সংযুক্ত তথ্যাবলী খুজে নিন (৪নং পয়েন্টে)।

[**৪ নং পয়েন্টে যে সমস্ত এলাকায় সামরিক অভিযান হবে সেগুলো বলা হয়েছেঃ (১ম ছবিতে দেখুন)]

◉পয়েন্ট-১:যারা অভিযানে অংশ নেবেনঃ

✔পশ্চিম বঙ্গের ৩৩তম ব্যাটেলিয়ন

( র‍্যাপিড , আর্মড, আর্টিলারী, সিগনাল এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং)

◉পয়েন্ট-২: যাতায়াতের পথঃ

গোজাডাংগা বিএসএফ ক্যাম্প(ভারত) থেকে ভোমরা বিজিবি ক্যাম্প(বাংলাদেশ)

✔কাকডাংগা বর্ডার

✔তলুলগাছা বর্ডার

◉পয়েন্ট-৩: রিপোর্টিং ও লোকাল ইন্টেলিজেন্স

✔আশাশুনী পুলিশ স্টেশন

✔সাতক্ষিরা সদর স্টেশন

◉পয়েন্ট-৪: যেখানে অভিযান পরিচালিত হবেঃ

১।. শ্যামনগর উপজেলা

২।. দেবহাটা উপজেলা

৩।.আশাশুলী উপজেলা

৪।.কলারোয়া উপজেলা

৫।.সাতক্ষীরা সদর উপজেলা

আপনার দায়িত্ব হলো এই ব্যপারটি গুরুত্ব সহকারে নেওয়া এবং যথাযথ কর্তৃপক্ষের পর্যালোচনা শেষে আমাদের কাছে জবাব পাঠানো ১৫/১১/২০১৩ তারিখের আগেই।

বিনীত

তৌফিক ইসলাম শতীল

সিনিয়র এসিস্টেন্ট সেক্রেটারী(ই এ এন্ড পি)

মিনিস্ট্রি অফ ফরেইন এফ্যায়ার্স ঢাকা

ফোনঃ ০১৭৫৮-৭২৬৪৬৩

বিস্তারিত আরো দেখুন :http://www.bdtomorrow.org/newsdetail/detail/41/62458 

উপরের ফ্যাক্স বার্তাটি আপনার কাছে আরো সত্য মনে হবে যখন আপনি গত ১১ই জানুয়ারী ২০১৪ এর ভারতীয় পত্রিকা দ্যা হিন্দের , SUHASINI HAIDAR এর লেখা Backing Bangladesh শিরোনামে লেখাটি পড়বেন। তিনি লিখেছেন 


অভিযোগ আছে , বাংলাদেশের ভিতরে বাংলাদেশী নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর সদস্যদের পোশাক পরে বাংলাদেশের ভিতরেই গোপনে অভিযান চালাচ্ছে ভারতীয়রা। বাংলাদেশীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে বাংলাদেশে ভারত পাঠিয়েছে বিশেষ টিম। ওদিকে শেখ হাসিনা সরকারের পক্ষ নেয়ার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর কাছে তদবির করছে ভারত।


সূত্র বাংলায় অনুবাদ :http://www.bdtomorrow.org/newsdetail/detail/200/62123

তাহলে কি বাংলাদেশে ভারতীয় সামরিক অভিযান হয়েছিলো সেটি ভারতীয় সামরিক বাহিনীর লোকজন ছাড়া ও সাংবাদিকরা জানতেন ? 

গত কয়েকদিন আগে নয়াদিগন্তে আরেকটি খবর প্রকাশ হয়। ভারতীয় গোয়েন্দারা বাংলাদেশের জেলখানায় বিরোধীদলের নেতাদের হত্যার পরিকল্পনার একটি গোপন নথি ফাস হয়। দ্য ইয়েলো আইজ অব আওয়ামী লীগ শিরোনামে, মনজুরুল ইসলাম লিখেন , ব্যর্থ মনোরথ নিয়ে সুজাতা সিং যখন দিল্লি ফিরে গেছেন, তখন ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’-এর প থেকে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংকে পাঠানো গোপন একটা নথির বিষয় এরই মধ্যে ফাঁস হয়ে গেছে, যা থেকে লোমহর্ষক তথ্য বেরিয়ে এসেছে। গত ২২ নভে¤¦র ২০১৩ তারিখে ‘র’-এর সদর দফতর থেকে EF6/DHK/43/69 স্মারকে একটি অতি গোপনীয় মেমোতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের কারাগারে আটক অন্তত পাঁচজন জামায়াত নেতাকে একটি পরিকল্পিত নৈরাজ্য সৃষ্টির মাধ্যমে ডিসেম্বর মাসেই হত্যার পরিকল্পনা হয়েছে।


সূত্র : http://chairmanbd.blogspot.co.uk/2014/01/blog-post_15.html 

বিডিনিউজের সম্পাদক সুবীর ভৌমিকের নিবন্ধ : আ.লীগকে ক্ষমতায় আনতে ভারতের সামরিক হস্তক্ষেপের সুপারিশ : 



ভারতের বন্ধু’ আওয়ামী লীগকে ফের ক্ষমতায় আনতে ‘অবশ্যই সবকিছু করার’ সুপারিশ করেছে আওয়ামীপন্থি অনলাইন নিউজপোর্টাল বিডিনিউজের সিনিয়র এডিটর ও বিবিসির সাবেক সংবাদদাতা সুবীর ভৌমিক। বাংলাদেশ আবার ১৯৭১ সাল পূর্ব অবস্থায় ফিরে যেতে পারে আশঙ্কা করে তিনি প্রয়োজনে ভারতীয় ‘সামরিক হস্তক্ষেপের’ সুপারিশ করেছেন। 

গতকাল টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত এক নিবন্ধে তিনি এসব মন্তব্য করেছেন।


সূত্র :http://www.amardeshonline.com/pages/details/2013/11/02/222981#.UnRDlfnxqth

বাংলাদেশে শুধু সামরিক না , রাজনৈতিক ভাবে ও হস্তক্ষেপ করছে ভারতীয়রা। মন্ত্রী বানানো , মন্ত্রী বাদ দেওয়া , এই সরকারকে স্থায়ী করতে সব লবিং করে যাচ্ছে ভারতীয়রা। যা স্পস্ট প্রমান করে বাংলাদেশে ভারতীয় সামরিক আগ্রাসন অবাস্তব কিছু নয়। এখন সেই রকম কিছু চিত্র দেখাবো আপনাদের। 

১) নির্বাচন হয়েছে দেশে কিন্তু মন্ত্রী নির্বাচন হয় ভারতীয় দুতাবাস থেকে: নতুন মন্ত্রিসভায় জায়গা পেতে নতুন এমপিদের মধ্যে দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে। মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীর প্রত্যাশীরা সরকারের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের বাসায় দৌড়ঝাঁপের চেয়ে বেশি দৌড়াচ্ছেন ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনে। তারা মনে করছেন দলের সিনিয়র নেতাদের চেয়ে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনে বেশি গুরুত্ব পাবে ভারতের পছন্দ। কারণ ভারত এ সরকারকে টিকিয়ে রাখবে। এ জন্য নতুন এমপিরা ছুড়ছেন ভারতীয় হাইকমিশনে। শুধু আওয়ামী লীগ নয়, জাতীয় পার্টি, জাসদ ও ওয়ার্কার্স পার্টির নির্বাচিতরাও ভারতের ঢাকাস্থ হাইকমিশনে কর্মরত অভিজিত নামের এক কর্মকর্তার আশীর্বাদ নিয়ে মন্ত্রী হতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। ওই কর্মকর্তা ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’ এর ঢাকাস্থ প্রধান। 

বিস্তারিত : http://www.dailyinqilab.com/2014/01/10/153916.php 

২) মমতার সঙ্গে বেশি কথা বলায় কপাল পুড়ল দিপু মনির ! : ভারতের সঙ্গে তিস্তা ও স্থলসীমান্ত চুক্তি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ‘তর্কে’ জড়িয়ে পড়া ও বেশি কথা বলার কারণেই সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান পাননি। আজ ভারতের কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকায় এ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। 

বিস্তারিত : http://tazakhobor.com/bangla/2013-07-22-23-07-10/20728-2014-01-13-05-56-42?q=83abbafc9af3437e8667075b9c57892a193345123 

৩) মির্জা আজম ও ইমাজউদ্দিন প্রামাণিককেও ভারত লবিতে মন্ত্রী বানানো হয় :কালের কন্ঠের খবরে বলা হয় , বেগম ইসমত আরা সাদেকও শেখ হাসিনার পছন্দের।
মির্জা আজম ও ইমাজউদ্দিন প্রামাণিককেও ভারত লবিতে মন্ত্রী বানানো হয়েছে বলে গুজব আছে
। আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ভিন্ন দলের হলেও তাঁদের পছন্দ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নিজে। এ ছাড়া মুজিবুল হক চুন্নু ও মশিউর রহমান রাঙাকে জাতীয় পার্টির পছন্দে মন্ত্রী বানানো হয়েছে। 

সূত্র : http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2014/01/13/40896

এখানে রিপোর্টার গুজব বললে ও এটাই আসল ঘটনা। কারন সত্য বলে প্রকাশ করলে এই রিপোর্টারের চাকরিই হয়তো চলে যাবে। 

৪) নির্বাচনে আসুন অন্যথায় জামাত ক্ষমতায় আসবে:এরশাদকে সুজাতা : খেয়াল আছে সুজাতা সিংহের কথা ? বুধবার ঢাকায় আসা ভারতীয় পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিং এরশাদের সাথে বৈঠকে কি বিষয়ে আলোচনা হয়েছে
জানতে চাইলে, প্রশ্নের জবাবে এরশাদ সাংবাদিকদের বলেন- ‘তিনি (সুজাতা) আমাকে নির্বাচনে যোগ দিতে বলেছেন। অন্যথায় জামায়াত ক্ষমতায় চলে আসবে। তবে আমি তাকে বলেছিল, বিষয়টা আমার হাতে নেই।’


সূত্র : http://www.eurobdnewsonline.com/bangladeshi-national-news/2013/12/04/14555

৫) বাংলাদেশ প্রশ্নে ভারতের অবস্থান বুঝলে লাভ হবে যুক্তরাষ্ট্রের সালমান খুরশিদের মন্তব্য : ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সালমান খুরশিদ 'দ্য হিন্দু' পত্রিকাকে বলেন

বাংলাদেশ নিয়ে ভারতের বোঝাপড়াটা বুঝতে পারলে আমেরিকারই লাভ হবে। ভৌগোলিকভাবে আমেরিকার চেয়ে ভারত বাংলাদেশের বেশি কাছে অবস্থান করে। সুতরাং এই অঞ্চল ও মানুষের অনুভূতি সম্পর্কে আমাদের অভিজ্ঞতা যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ নেয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে।'


সূত্র : http://www.jjdin.com/?view=details&type=single&pub_no=703&cat_id=1&menu_id=13&news_type_id=1&index=4&archiev=yes&arch_date=31-12-2013 

৬) বাংলাদেশে যে গার্মেন্টসে বার বার আগুন লাগায় , কে লাগায় জানেন ? গার্মেন্ট অস্থিরতায় ২০ হাজার ভারতীয় ম্যানেজারের ইন্ধন : জন্মসূত্রে ভারতীয় হলেও বাংলাদেশে তারা বসবাস করেন নিজ দেশের মতোই। ভিসা-টিকিটের বালাই নেই। ইচ্ছেমতো এ দেশে আসেন, ইচ্ছে হলেই ভারতে যান। বাংলাদেশ থেকে প্রতিনিয়ত লাখ লাখ ডলার নিয়ে গেলেও সরকারকে কোনো ট্যাক্স দেন না। সরকারি বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো সদস্যও তাদের ঘাটায় না। কারণ তারা বাংলাদেশের তৈরী পোশাক শিল্পের ‘প্রাণ’. ...মার্চেন্ডাইজার, প্রোডাকশন ম্যানেজার, জেনারেল ম্যানেজার, ফাইন্যান্স ম্যানেজার, অ্যাকাউন্টস ম্যানেজার, ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটিং ম্যানেজার, কোয়ালিটি কন্ট্রোলার প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে তারা নিয়োজিত।

বিস্তারিত : http://chairmanbd.blogspot.co.uk/2013/09/blog-post_28.html 

বৃটিশ পত্রিকা গার্ডিয়ান বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তকে দক্ষিন এশিয়ার বধ্যভূমি বলেছিলো। সীমান্ত হত্যাকান্ডে যেহেতু সরকারের কোনো প্রতিক্রিয়া নেই , তাই দেশের ভিতর ভারতীয় বাহিনীর সামরিক আগ্রাসনের সরকারের আপত্তি থাকার কথা না। 

গার্ডিয়ানের রিপোর্টটি দেখুন এখানে :http://chairmanbd.blogspot.co.uk/2013/10/blog-post_1094.html 

আবার আরো অতীতের দিকে যাবো। খেয়াল আছে বিডিয়ার হত্যাকান্ডের কথা ? কারা বুট,হেলমেট ছাড়া হামলা করেছিলো বিডিয়ার অফিসারদের উপর ? 



ছবিঃ বুট, হেলমেট ছাড়া অপারেশনে এরা কারা? 

বিডিয়ার হত্যাকান্ডে ভারত যে জড়িত তার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ওই সময় বেচে যাওয়া এক অফিসার ও জাপা নেতা এরশাদ :

উদ্ধার পাওয়া এক সেনাকর্মকর্তা একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেছেন, এ ঘটনার পেছনে বিদেশী শক্তির হাত রয়েছে। কারণ, এসব ঘটনা ঘটেছে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে, তাৎক্ষণিক কোনো ক্ষোভ থেকে নয়। সেনাকর্মকর্তাদের লাশের সাথে যে অসম্মান ও পৈশাচিকতা দেখানো হয়েছে কোনো সাধারণ জওয়ানের পক্ষে এ ধরনের কাজ করা অসম্ভব। এগুলো করা হয়েছে বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে। প্রতিশোধস্পৃহা থেকে। বিডিআর’র প্রতি কাদের এই প্রতিশোধস্পৃহা তা এ দেশের মানুষ জানেন। 

বেসরকারি চ্যানেল দিগন্ত টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক সেনাশাসক এইচ এম এরশাদ বলেন, যারা এতগুলো সেনা কর্মকর্তাকে হত্যা করেছে তারা কোন স্থান দিয়ে কিভাবে পালিয়ে গেলো? তাদেরকে কেন কেউ চিনতে পারলো না? এমনকি কেউ সন্দেহ করল না যে, হত্যাকারীরা বাইরের লোক। এ থেকে বোঝা যাচ্ছে যে, এ ঘটনার পেছনে একটি আন্তর্জাতিক চক্রান্ত রয়েছে। এটা সরকারকে খুঁজে বের করতে হবে 

বিস্তারিত : http://chairmanbd.blogspot.co.uk/2013/10/blog-post_28.html 

আপনাদের খেয়াল আছে কয়েকমাস আগে রাজশাহীতে দেখতে বাংলাদেশীদের মত না এই রকম একজন লোক শিবিরের মিছিলে গুলি করেছিলো। প্রথম আলো বলেছিলো এটা নাকি শিবির ক্যাডার ? পরে ভিডিও বের হওয়ার পর সেই শিবির ক্যাডারকে র্যাব বানিয়ে দেয় প্রথম আলো। 

আর ভিডিওটি দেখুন : 


http://www.youtube.com/watch?v=fv2Zm2Dt71s

লোকটি র্যাবের সাথে অংশগ্রহণ করে শিবিরের উপর আক্রমন করে। অনেকেই সন্দেহ করেছেন লোকটি ভারতীয়। 

এই নিয়ে পড়ুন :http://www.bdtomorrow.org/blog/blogdetail/detail/1646/activist/29556

আর ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা RAW ১০০ জন বাংলাদেশী কিলার , যারা মূলত আওয়ামীলীগের তাদেরকে ট্রেনিং দিয়েছে বলে রিপোর্ট করেছে একুশে টিভি। তাহলে উপরের লোকটি তাদেরই একজন না ট্রেনিং দেওয়া RAW এর লোক ? 

একুশে টিভির রিপোর্টটি দেখুন :

http://www.youtube.com/watch?v=VxX__NXML8g


গত ২৩ শে অক্টোবর ২০১০ এ নিউইয়র্ক থেকে আবু জাফর মাহমুদ নামের একজন এলটি লেখা লিখেছিলেন। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ভারতের স্বার্থে বাংলাদেশকে অশান্ত করার পায়তারা ভারতের। আমরা কি বর্তমানে সেটাই দেখছি ?

আরো পড়ুন : http://bdinn.com/articles/raw-is-turning-bangladesh-into-a-battle-field-for-indian-interest/ 

তারপর ঢাকায় হেফাজতের উপর গণহত্যায় ও ভারতীয়দের অংশগ্রহনের অভিযোগ রয়েছে : 



এই ছবিটি ৫ মে ২০১৩ শাপলা চত্বরে পরিচালিত গণহত্যার সময়কালের ছবি। চিহ্নিত ঐ সেনাটি বাংলাদেশের নয় বলেই সুত্র নিশ্চিত করেছে। 

আরো পড়ুন :http://www.sheikhnews.com/2014/01/15/bangladeshnow-28/ 

এই ধরনের খবরগুলো নিশ্চই বেগম খালেদা জিয়া সহ দেশের অনেকেই জানেন। তাই মার্চ ফর ডেমোক্রেসির দিনে খালেদা জিয়া অভিযোগ করেছিলেন দেশে এমন মুখ দেখা যাচ্ছে , যারা দেখতে বাংলাদেশী না। 


http://www.youtube.com/watch?v=BPVCnwZBR_Y

আর তার সাথে সাথে সাবেক তত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মইনুল হোসেন ও একই অভিযোগ করলেন। তিনি ও বলেছিলেন বাংলাদেশে ভারতীয়দের সামরিক বাহিনীর উপস্থিতি নিয়ে। 

http://www.youtube.com/watch?v=Yi11ZpYCFUU


তাহলে কি বাংলাদেশে ভারতীয়দের উপস্তিতি ওপেন সিক্রেট ? কাদের মোল্লার ফাসির পর পাকিস্তান পার্লামেন্ট নিন্দা প্রস্তাব পাশ করার পর আমাদের দেশের বুদ্বিজীবি ও দেশপ্রেমিক গণজাগরণ মঞ্চ বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছিলো। ভারতী আগ্রাসনের বিরুদ্বে এই সকল দেশপ্রেমিকদের কর্মসূচি কবে দেখবো ? যদি তারা সোচ্চার না ও হন , দেশে প্রত্যেকটি দেশপ্রেমিক জনগনকে সোচ্চার হতে হবে ভারতীয় হস্তক্ষেপের বিরুদ্বে।